Jobanনিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলা এবং শেতাঙ্গ আধিপত্যের চাবুক

মোহাম্মদ এলমাসরি’র কলাম

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলা এবং শেতাঙ্গ আধিপত্যের চাবুক

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলা বিশ্ব সন্ত্রাসবাদ নিয়ে পুনরায় আমাদের ভাবাচ্ছে। এই হামলা মূলত শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের নগ্ন চিত্র আমাদের সামনে হাজির করেছে। সে বিষয়ে আল জাজিরা’য় কলাম লিখেছেন দোহা ইনিস্টিটিউট অফ গ্রাজুয়েট স্টাডিজের সহকারি অধ্যাপক মোহাম্মদ এলমাসরি। লেখাটি জবান’র পাঠকদের জন্য অনুবাদ করেছেন, মাইনুদ্দিন সেজান।


শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদীদের দ্বারা পরিচালিত নিউজিল্যান্ডের মসজিদে আজকের হামলায় কমপক্ষে ৪৯জন নিহত হয়েছে। শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী সন্ত্রাসবাদ’র সাম্প্রতিক কার্যক্রমগুলোর মধ্যে এটি সর্বশেষ ঘটনা। ক্রমবর্ধমান ও ক্রমাগত হুমকি সত্ত্বেও, পশ্চিমা সরকারগুলি শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের বিপদকে কার্যকরভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়েছে।

শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী সন্ত্রাসবাদের সাম্প্রতিক কর্মকাণ্ডগুলির একটি সংক্ষিপ্ত তালিকায় রয়েছে ২০১৮ সালে পেনসিলভানিয়ার পিটাসবুর্গে সিনাগগে রবার্ট গ্রেগরি বাউয়ার্সের ১২জন ইহুদি উপাসক হত্যা; ২০১৭ সালে ক্যুবেক শহরের মসজিদে আলেকজ্যান্দ্রে বিসননেটের ছয়জন মুসলমান হত্যা; ২০১৫ সালে চার্লসটন, সাউথ ক্যারোলিনার এক গির্জায় ডিলান রুফের ৯ জন নিগ্রো খ্রিস্টান যাজককে হত্যা; এবং ২০১১ সালে নরওয়েতে অ্যান্ডারর্স বেহরিং ব্রেইভিক ৭৭ জন জবাই করে হত্যার মতো ঘটনা।

সাউদার্ন প্রোভার্টি ‘ল সেন্টার’র মতে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আইন প্রয়োগকারী সংস্থা অসংখ্য শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী চক্রান্ত নস্যাৎ করে দিয়েছে, যে চক্রান্তগুলোর মধ্যে ৩০ হাজার মানুষকে হত্যা করার পরিকল্পনাও রয়েছে। গত মাসে, আমেরিকান ফেডারেল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন নিগ্রো, উদার রাজনীতিবিদ এবং মিডিয়া ব্যক্তিত্বদের হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগে ক্রিস্টোফার পল হ্যাসন নামে মার্কিন কোস্টগার্ডের শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী এক লেফটেন্যান্টকে গ্রেফতার করেছে।

শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের ইতিহাসে আমেরিকার কু ক্লুক্স ক্ল্যান (কেকেকে) দ্বারা সংঘটিত নিগ্রো বিরোধী সহিংসতা, শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী জনতা দ্বারা ঊনবিংশ ও বিংশ শতাব্দীর হাজার হাজার নিগ্রো আমেরিকানদের মৃত্যুদণ্ড, আফ্রিকান ক্রীতদাস বাণিজ্যের সময়ে লক্ষ লক্ষ নিগ্রো হত্যা, অথবা পশ্চিমা ঔপনিবেশিকতার উন্মেষ পর্বে লক্ষ লক্ষ বাদামী মানুষ হত্যার চেয়ে এসব কম কিছু নয়। পন্ডিত ও বিশ্লেষকগণ বারবার অকাট্য যুক্তি দিয়েছেন যে পশ্চিমা ঔপনিবেশিকতা উভয়ই শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের সেবায় পরিচালিত হয়েছিল।

যদিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিডিয়া এবং রাজনৈতিক অভিজাতরা ‘ইসলামী সন্ত্রাসবাদ’, কট্টর ডানপন্থা, শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী সন্ত্রাসবাদ নিয়ে আলোচনা করার জন্য যথেষ্ট সময় ব্যয় করে। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দু-তৃতীয়াংশ সন্ত্রাসী হামলা কট্টর-ডানপন্থী ব্যক্তি ও গোষ্ঠী দ্বারা পরিচালিত হয়েছে। সাউদার্ন প্রোভার্টি ‘ল সেন্টার’র গবেষণায় দেখা যাচ্ছে যে, কট্টর ডানপন্থী সহিংসতার বিষয়টি শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের সাথে জড়িত।

শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী সন্ত্রাসবাদের সুস্পষ্ট ও অব্যাহত হুমকি সত্ত্বেও, পশ্চিমা সমাজগুলি  বিপদটিকে এখনও গুরুত্ব সহকারে গ্রহণ করেনি, যা তাদের করা উচিত । সাম্প্রতিক সময়ে নিউইয়র্ক টাইমস রিপোর্টে দেখা গেছে যে, কয়েক দশক ধরে আমেরিকার ‘অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলার কৌশল কট্টর-ডান চরমপন্থার ক্রমবর্ধমান বিপদকে উপেক্ষা করেছে’ রিপোর্টটি আরো উল্লেখ করেছে যে, এই কট্টর-ডানপন্থা স্পষ্টভাবে শেতাঙ্গ আধিপত্যের সাথে আবদ্ধ।

সাদা আধিপত্যের পৃষ্ঠপোষকতা

পশ্চিমা সমাজগুলি শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের হুমকিকে যেভাবে গূরত্বসহকারে নেওয়া উচিত সেভাবে কেন নেয়নি তার ব্যাখ্যা দিতে পারে রাজনৈতিক আন্দোলনগুলি। কারণ পশ্চিমা রাজনৈতিক নেতাদের অনেকে নিজেদের শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের সাথে জড়িয়ে ফেলেছেন।

শেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদ ইউরোপীয় ও আমেরিকান উভয় রাজনৈতিক মূলধারার মধ্যে দৃঢ় ভিত্তি গড়ে নিয়েছে। ইউরোপে শেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীরা এর রাজনৈতিক ব্যবহার পেয়েছে এবং ২০১৬ সালে যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট ভোটসহ নির্বাচন ও গণভোটকে প্রভাবিত করেছে। অন্যদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং অসংখ্য রিপাবলিকান রাজনীতিবিদ সম্পৃক্ত আছেন শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের সাথে।

 

শেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদ ইউরোপীয় ও আমেরিকান উভয় রাজনৈতিক মূলধারার মধ্যে দৃঢ় ভিত্তি গড়ে নিয়েছে। ইউরোপে শেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীরা এর রাজনৈতিক ব্যবহার পেয়েছে এবং ২০১৬ সালে যুক্তরাজ্যের ব্রেক্সিট ভোটসহ নির্বাচন ও গণভোটকে প্রভাবিত করেছে। অন্যদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং অসংখ্য রিপাবলিকান রাজনীতিবিদ সম্পৃক্ত আছেন শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের সাথে।

শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী এবং সাবেক ‘কেকেকে’ গ্র্যান্ড উইজার্ড ডেভিড ডিউক ব্যাখ্যা করেছিলেন কেন আমেরিকার ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদীরা ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছেন এবং ২০১৬  সালে ট্রাম্প শিরোনাম হয়েছিলেন যখন তিনি ডিউকের সমর্থনের অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন। ২০১৭ সালে ট্রাম্প কেকেকে’র প্রসংশা করেছেন এবং ভার্জিনিয়া শার্লটসভিলে প্রতিবাদকারী শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদীদের বলেছেন ‘খুব চমৎকার মানুষ’। এই দশকের শুরুর দিকে ট্রাম্প আমেরিকার প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বুদ্ধিমত্তা, গ্রেড এবং নাগরিকত্বকে চ্যালেঞ্জ করে প্রচারণা চালিয়েছেন।

শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদ সব সময় সহিংস নয়, অন্তত ব্যক্তি পর্যায়ে নয়। শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদের কিছু প্রভাব আরও জঘন্য আরো ব্যাপক এবং সাধারণ। অন্তর্নিহিত পক্ষপাতের উপর করা বৈজ্ঞানিক গবেষণাগুলি দেখায় যে, সাদা লোকেরা কালোদেরকে নিচু বুদ্ধিমানের মানুষ এবং আরও অন্যান্য বিষয়ের চেয়ে বেশি হুমকি হিসেবে দেখে।

সূক্ষ্ম পক্ষপাতগুলো ব্যাখ্যা করতে সাহায্য করে সমস্ত অ-জাতিগত ভেরিয়েবলগুলি নিয়ন্ত্রণে থাকার পরেও উদাহরণস্বরূপ কালো আমেরিকানদের জন্য ঋণ নেওয়া এবং চাকরি পাওয়া কেন বেশি কঠিন। নিউজিল্যান্ডে আজকের মুসলিম-বিদ্বেষী গণহত্যার ক্ষেত্রে সম্ভবত সবচেয়ে প্রাসঙ্গিক গবেষণাটি বলছে যে, পশ্চিমা সমাজগুলোতে সাদা জনগোষ্ঠীর বৃহৎ অংশ মুসলিম এবং অন্যান্য বাদামী অভিবাসীদের দেখে অর্ধমানব হিসেবে।

আজকের নিউজিল্যান্ড গণহত্যার সাথে সরাসরি সম্পর্কিত আরেকটি সমস্যা হচ্ছে মিডিয়া কভারেজ। পশ্চিমা গণমাধ্যমে মুসলমানদের মিডিয়া কভারেজগুলো আসে নেতিবাচক এবং অতি সরলীকরণ আকারে। প্রতিবেদনে বেশি হাইলাইট করা হয় মুসলমানদের দ্বারা সংঘটিত সহিংস অপরাধগুলো। আর যখন মুসলমানদের বিরুদ্ধে কোন সহিংস অপরাধ সংঘটিত হয় তখন প্রায়ই সেটা গুরুত্বহীন হয়ে পড়ে বা থেকে যায় উপেক্ষিত

 

আজকের নিউজিল্যান্ড গণহত্যার সাথে সরাসরি সম্পর্কিত আরেকটি সমস্যা হচ্ছে মিডিয়া কভারেজ। পশ্চিমা গণমাধ্যমে মুসলমানদের মিডিয়া কভারেজগুলো আসে নেতিবাচক এবং অতি সরলীকরণ আকারে। প্রতিবেদনে বেশি হাইলাইট করা হয় মুসলমানদের দ্বারা সংঘটিত সহিংস অপরাধগুলো। আর যখন মুসলমানদের বিরুদ্ধে কোন সহিংস অপরাধ সংঘটিত হয় তখন প্রায়ই সেটা গুরুত্বহীন হয়ে পড়ে বা থেকে যায় উপেক্ষিত ।

কোয়ান্টেটিভ অ্যানালাইসিসের এক গভীর পর্যালোচনায় দেখা গেছে, খবরগুলোতে মুসলমানদের দ্বারা সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রমগুলো অমুসলমানদের দ্বারা সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রমগুলোর চেয়ে ৩৫৭ শতাংশ বেশি মনোযোগ পায়। উপরন্তু, সংবাদ প্রতিবেদনগুলিতে ‘সন্ত্রাসবাদ’ শব্দটি প্রায়ই অমুসলিম সহিংসতার প্রেক্ষাপটে উপেক্ষা করা হয় এবং বিশেষভাবে ব্যবহৃত হয় মুসলমান দ্বারা সংঘটিত অপরাধ বর্ণনায় ।

রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং মিডিয়া কভারেজ দুটি ফ্যাক্টর; যা সমসাময়িক পশ্চিমা সমাজগুলিতে মুসলিম, কৃষ্ণাঙ্গ, অভিবাসী এবং অন্যান্য সংখ্যালঘুদের সম্পর্কে  নেতিবাচক ধারণাগুলো ব্যাখ্যা করতে সাহায্য করে। নিউজিল্যান্ডের আজকের হামলাকারীরা মুসলিম বা অন্য কোন সংখ্যালঘু গোষ্ঠীকে ঘৃণা করতে জন্মগ্রহণ করেনি। তাদের সেভাবে শেখানো হয়েছিল, ঠিক যেভাবে গোঁড়া অসহিষ্ণু ডিসকোর্সের মাধ্যমে অন্য সব শেতাঙ্গ আধিপত্যবাদী সন্ত্রাসীদেরকে শেখানো হয়েছিল। যে ডিসকোর্স পশ্চিমা সমাজগুলিতে কতৃত্ববাদী অবস্থান অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।