Jobanএবার সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টার বিরুদ্ধে ‘অপহরণ’র অভিযোগ

এবার সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টার বিরুদ্ধে ‘অপহরণ’র অভিযোগ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরাপত্তা উপদেষ্টা মেজর জেনারেল তারেক আহমেদ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ উঠেছে। ‘প্রচ্ছায়া লিমিটেড’র ৩ কর্মচারীকে আইনের অপব্যবহার করে তুলে নিয়ে গুম করা হয়েছে বলে খবর প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা। আল জাজিরা’র ইনভেস্টিগেটিভ ইউনিটের এই প্রতিবেদন ইতিমধ্যে আলোচিত ইস্যুতে পরিণত হয়েছে।

তারেক আহমেদ সিদ্দিকীর এক সময়ের ব্যাবসায়-সহযোগী এবং প্রাক্তন সেনা কর্মকর্তা কর্নেল শহিদ উদ্দিন খান এ অভিযোগ তুলেছেন। তিনি জানান, তার (প্রচ্ছায়া লিমিটেড) প্রতিষ্ঠানের তিন জন কর্মচারীকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বর্তমানে শহিদ উদ্দিন খান যুক্তরাজ্যে বসবাস করছে।

আবাসন কোম্পানি ‘প্রচ্ছায়া লিমিটেড’ ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। যেখানে তারেক আহমেদের স্ত্রী শাহিন সিদ্দিকী চেয়ারপারসন এবং শহিদ উদ্দিন খান চিফ এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর হিসেবে ছিলেন। এছাড়াও দুই পরিবারের অন্যান্য সদস্যরাও এই কোম্পানির সাথে জড়িত।

শহিদ উদ্দিন খান ও মেজর জেনারেল তারেক আহমেদ সিদ্দিকী

নির্বাচনের আগে গত বছর এপ্রিল মাসে সরকার পরিবর্তন হতে পারে এমন ভয়ে শাহিন সিদ্দিকী শহিদ উদ্দিনকে কোম্পানির সাথে তার জড়িত থাকার প্রমাণ নষ্ট করে কোম্পানি বন্ধ করার জন্য চাপ দেয়। শহিদ উদ্দিন পরবর্তীতে জানুয়ারি মাসে এসে কোম্পানি গুটিয়ে ফেলেন।

গত বছর এপ্রিলে শাহিন সিদ্দিকীর লোকজন এসে অফিসের কম্পিউটারের হার্ডড্রাইভ ও সিসিটিভি ফুটেজ নিয়ে চলে যায়। এছাড়াও শহিদ উদ্দিনের অন্যান্য অর্থ সংক্রান্ত নথি নিয়ে চলে যায়।

এপ্রিলের ওই ঘটনার সাক্ষ্য দিতে চাওয়ায় ডিরেক্টর জেনারেল অফ ফোর্সেস ইন্টেলিজেন্স অফিসে জিজ্ঞাসাবাদের নাম করে কোম্পানির ৩জন কর্মীকে তুলে নিয়ে যায়। বর্তমানে তারা নিখোঁজ রয়েছে। নিখোঁজ ব্যক্তিরা হলেন, সৈয়দ আকিদুল আলী, জহিরুল হক খন্দকার এভং খোরশেদ আলম পাটোয়ারি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় খোরশেদ আলম ও আকিদুল আলীকে তাদের স্ব-স্ব বাড়ি থেকে গত ১৩ জানুয়ারি তুলে নেয়া হয়। অন্যত্র থেকে জহিরুলকে তুলে নেয়া হয়।

অন্যদিকে আল জাজিরা, পরিবারগুলোর সাথে কথা বলে তাদের নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। এছাড়া আল জাজিরার ইনভেস্টিগেটিভ ইউনিট জেনারেল তারেক আহমেদ সিদ্দিকী ও তার স্ত্রীর সাথে কথা বলতে চাইলে তারা কোন সাড়া দেননি।

উল্লেখ্য, তারেক আহমেদ সিদ্দিকী প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা হওয়ায় দেশের সশস্ত্র বাহিনী ও ইন্টেলিজেন্স এজেন্সির উপর তার নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। এছাড়াও তিনি আওয়ামী লীগের একজন অন্যতম সহযোগী। তার ভাই প্রধানমন্ত্রীর বোন শেখ রেহানার স্বামী।