Jobanবার্সেলোনার ভবিষ্যতের রক্ষক ডেম্বেলে

বার্সেলোনার ভবিষ্যতের রক্ষক ডেম্বেলে

মাত্র এক বছর আগে ফরাসি ক্লাব রেনে থেকে ১৫ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে উসমান ডেম্বেলেকে দলে টানে ডর্টমুন্ড। এক মৌসুমের ব্যবধানেই সেই ডেম্বেলের দাম বেড়ে দাঁড়ায় ১৫০ মিলিয়ন ইউরোতে। ২০১৭ সালের আগস্ট মাসে গ্রীষ্মকালীন দলবদলে রেকর্ড পারিশ্রমিকে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড থেকে উসমান ডেম্বেলেকে কিনে আনে স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনা। তাকে দলে টানতে নগদ ১০৫ মিলিয়ন ইউরো খরচ হয় কাতালান ক্লাবটির। বোনাস থেকে আরও ৪২ মিলিয়ন ইউরো পাওয়ার কথা জার্মান ক্লাবটির। ডেম্বেলের জন্য সব মিলিয়ে বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১২০০ কোটি টাকা গুনতে হয় বার্সেলোনাকে। তবে স্প্যানিশ ক্লাবটির একাদশে নিয়মিত হতে পারেননি তিনি। প্রায় ম্যাচেই বেঞ্চে দেখা গেছে তাকে। ডেম্বেলেকে বিক্রি করার জন্য উঠেপড়েও নাকি লেগেছিল স্প্যানিশ ক্লাবটি। এখানেই শেষ নয়। স্পেনে পাড়ি দেওয়ার পর থেকে দুর্ভাগ্য যেন পিছুই ছাড়ছিল না ফরাসি এই ফুটবলারের। আচরণগত সমস্যা সবচেয়ে বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছিল ডেম্বেলের। দলের অনুশীলনে দেরি করে আসা নিয়ে তার উপর নাখোশ ছিলেন স্বয়ং বার্সালোনা কোচ। এমনকি, খেসারত হিসেবে বার্সেলোনায় তাকে জরিমানার পর জরিমানার মুখোমুখি হতে হয়েছিল। সময়মতো অনুশীলনে যেতে না পারায় শুধু জরিমানা হিসেবেই গচ্চা দিয়েছিলেন প্রায় ২ লাখ ইউরো।

তবে বার্সেলোনায় আস্তে আস্তে খারাপ সময় কাটিয়ে উঠেছেন এই তরুণ। বার্সেলোনার দুঃসময়ে গোল করে রক্ষা করেন আর্জেন্টাইন জায়ান্ট লিওনেল মেসি। মেসি ব্যর্থ হলে হাল ধরেন লুইস সুয়ারেজ-ফিলিপ কৌতিনহো। তবে সাম্প্রতিক সময়ে বার্সেলোনার আস্থার জায়গা হয়ে উঠছেন ক্লাবটির প্রতিভাবান খেলোয়াড় ডেম্বেলে। কিছুদিন আগেই স্প্যানিশ লা লিগায় অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে ম্যাচে দেখা গেল তার দুর্দান্ত ভূমিকা। বদলি হিসেবে মাঠে নেমেই পিছিয়ে পড়া বার্সাকে এনে দিলেন ১-১ গোলের ড্র। এর আগে গত নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে রায়ো ভায়েকানোর বিপক্ষে ম্যাচেও সেই একই রূপে দেখা গিয়েছিল ডেম্বেলেকে। সেই ম্যাচের ৮৭ মিনিটে গোল করে বার্সেলোনাকে সমতায় ফিরিয়েছিলেন তিনি।

এভাবে প্রতিনিয়ত নিজের প্রতিভার প্রমাণ দিয়ে যাচ্ছেন ডেম্বেলে। কিন্তু বাধ সেধেছে ইনজুরি। ইনজুরি তাকে সামনে চলতে দিচ্ছে না। বার্সার এই তারকার প্রতিভা নিয়ে কোনো প্রশ্নের অবকাশ নেই। দারুণ প্রতিভাবান বলেই তাকে দলে টেনেছে বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাবটি। দলের হয়ে সুযোগ পেলেই ভালো করে চলেছেন তিনি। কিন্তু বার্সায় টিকে থাকতে হলে যা যা করা দরকার তা তিনি করে দেখাতে পারেননি ইনজুরির কারণে। এমনকি, তার ইনজুরির কারণে বিকল্পও ভাবতে শুরু করেছিল বার্সেলোনা। চলতি মৌসুমে তার ইনজুরির ভাবনায় ম্যালকমকে কিনেছে বার্সা। তবে ইনজুরি কাটিয়েও ডেম্বেলের দারুণ ফর্মের কারণে সুযোগ মিলছে না ব্রাজিলিয়ান ওই তরুণের। এই ফর্মে থাকার মধ্যেই আবার দুঃসংবাদ হানা দিয়েছে বার্সা শিবিরে। ইনজুরির কারণে ডেম্বেলেকে তিন সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকতে হবে।

অথচ চলতি মৌসুমে কোচের এবং বার্সা ভক্তদের আশা মিটিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে নতুন মৌসুমে ডেম্বেলে ১৩ গোল করেছেন। লেগানেসের বিপক্ষে ম্যাচে শুরুতে দারুণ এক গোল করেন তিনি। এছাড়া ম্যাচে ১৫বার ড্রিবলিং করার চেষ্টা করেছেন। সফল হয়েছেন ১২বার। দলের অন্য সদস্যদের থেকে যা বেশি। ফর্মে যে আছেন তা মাঠের পারফর্ম্যান্সই বলে দিচ্ছে। এর আগে তার ক্যারিয়ারে এক মৌসুমে সর্বোচ্চ ১২ গোল ছিল। এবার তার সামনে দারুণ সুযোগ ছিল সংখ্যাটাকে আরো দূরে নিয়ে যাওয়ার। কিন্তু ইনজুরি তাকে তিন সপ্তাহ মাঠের বাইরে ছুঁড়ে ফেলেছে। মানে সামনে কোপা দেল রে’তে সেভিয়ার বিপক্ষে দুই লেগেই দর্শক সারিতে থাকবেন তিনি। এছাড়া জিরোনা এবং ভ্যালেন্সিয়ার বিপক্ষে লিগের ম্যাচে খেলতে পারবেন না ডেম্বেলে। বার্সা বেশ ভাবনায় থাকলেও ডেম্বেলে কিছুটা স্বস্তিতেই আছেন বলা যায়। ইনজুরির ম্যাচেও তিনি গোল পেয়েছেন, মাঠে বেশ ভালো খেলেছেন। ধীরে ধীরে পরিণত হচ্ছেন ডেম্বেলে। মাত্র ২১ বছর বয়স তার। সামনে অনেকটা সময় পড়ে আছে। বার্সার মতো এমন এক ক্লাব যেখানে মেসির মতো সেরা খেলোয়াড়ের সাথে তিনি খেলতে পারছেন। বিশ্বের সেরা এই তারকার সান্নিধ্যে থেকে ডেম্বেলেও সময়ের ব্যবধানে সেরাদের কাতারে জায়গা করে নেবেন। মেসির উত্তরসূরী হিসেবে হয়তো অদূর ভবিষ্যতে বার্সার হাল ধরবেন ডেম্বেলেই।